বিশ্বের রাজনৈতিক ইতিহাসে এটি একটি জঘন্য ও বর্বর ঘটনা

মাওলানা মুহিউদ্দীন খান
বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ ও সম্পাদক, মাসিক মদিনা

২০০৬ সালের ২৮ শে অক্টোবর বাংলাদেশের ইতিহাসে একটি কালো অধ্যায়। শুধু এ দেশে নয় বরং গোটা বিশ্বের রাজনৈতিক ইতিহাসে এটি একটি জঘন্য ও বর্বর ঘটনা। ঐ দিন আওয়ামী লীগ দিনে-দুপুরে লগি-বৈঠা দিয়ে রাস্তায় প্রকাশ্য হত্যাকাণ্ড চালায়। কারো ইঙ্গিতে ক্ষমতার পালা বদল করার জন্য পরিকল্পিতভাবে এই ঘটনা ঘটানো হয়েছে। আমি এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি করি। কিন্তু দুঃখজনক বিষয় হলো, বর্তমান সরকার হত্যাকারীদের বিচার না করে বরং তাদের রক্ষা করার স্বার্থে মামলাই প্রত্যাহার করে নিয়েছে। হত্যাকারীরা এমন আশকারা পাওয়ায় ভবিষ্যতেও এ ধরনের হত্যাকাণ্ডের পুনরাবৃত্তি ঘটতে পারে, যা দেশ, জনগণ, গণতন্ত্র কারো জন্যই কল্যাণ বয়ে আনবে না।
তবে ওই দিন যে সকল মরদে মুজাহিদ শুধু আল্লাহর জন্য শরীরের তাজা রক্ত ঢেলে দিয়ে সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকার করেছেন, তাদের পরিবারকে সান্ত্বনা দেয়ার আমার তেমন কিছু নাই। কিন্তু আমি নিশ্চিতভাবে বিশ্বাস করি আখেরাতে তারা এর প্রতিদান পাবেন। কারণ আল্লাহই একমাত্র সাক্ষী, কুরআনের আয়াতগুলো বারবারই আমার হৃদয়ে দাগ কাটে, ‘‘ঐ ঈমানদারদের সাথে ওদের দুশমনির এ ছাড়া অন্য কোনো কারণ ছিল না যে, তারা এমন আল্লাহর প্রতি ঈমান এনেছিল, যিনি মহাশক্তিমান ও যিনি কারো প্রশংসার ধার ধারেন না।” (সূরা বুরুজ : ৮) সুতরাং তাদের সাথী ভাইদের হারানোর কিছুই নেই। তাদেরকে আরো সতর্ক থাকতে হবে। যেখানে আইন ও সুবিচার নেই সেখানে সতর্কতা ও বিচক্ষণতার বিকল্প নেই। কিন্তু কাজ চালিয়ে যেতে হবে। আল্লাহর রাস্তায় যারাই কাজ করে তারা পরিণামের পরোয়া করে না। কারণ, পরিণাম আল্লাহরই হাতে, সাহাবায়ে কেরাম (রা)-এর জীবনী থেকে আমরা এই শিক্ষাই পাই।

SHARE

Leave a Reply