মোশাররফ হোসেন খানের কবিতা শহীদি কাফেলা [স্মরণ : শহীদ মাওলানা মতিউর রহমান নিজামী]

আর কোনো শোক নয়, নয় কোনো অনুতাপ
শহীদি কাফেলা এবার ছড়াবেই উত্তাপ!

কম্পিত রাজপথ, সকল সড়ক
কাদের পদভারে?
কারা যায় ঊর্ধ্বমুখী হাত আর
অগ্নিঝরা কণ্ঠস্বরে!
সেতো শহীদি কাফেলার মিছিল
হে রহমান, দয়ার সাগর-
ঐ মিছিলে আমাকেও করে নাও শামিল!

আর কত রক্ত নেবে, নাও
আর কত প্রাণ নেবে নাও।
তবুও তোমার জমিনে প্রভু
আমাদের কাক্সিক্ষত বিজয় দাও।

ওভাবে ভঙ্গুর কিংবা শোকাতুর হৃদয়ে নয়,
সুদৃঢ় হাতে কালেমার ঝান্ডা তুলে নাও
কঠিন শপথে হে শহীদি কাফেলা সামনে বাড়াও!
ক্রমাগত সামনে বাড়াও।

বারুদ-বিশ্বাসে জ্বলে ওঠো ফের
বদর, ওহুদের মত
ঝরুক লোহু, বয়ে যাক খুনের দরিয়া
তবুও থামবে না সিংহদিল শত!
এ মিছিল এগুবেই সম্মুখে
খুনের তরঙ্গ পেরিয়ে
ঐতো শত শহীদ ডাকছে আমাদের
সাহসী হাত নাড়িয়ে।

তবে কেন থামবে বন্ধু! তবে কেন দ্বিধা আর
বৈরী বাতাসে শক্ত হাতে টানতেই হবে কিশতির গুন,
কণ্ঠে তোলো ধ্বনি-আল্লাহু আকবর,
‘ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন’!

ছাপ্পান্ন হাজার বর্গমাইল ছাড়িয়ে যাক আমাদের মিছিল
এ মিছিল শহীদি কাফেলার
যদিও জানি এপথ রক্ত-পিচ্ছিল!-
তবুও আর পিছুটান নয়, নয় কোনো বরাভয়
বিজয়ের পতাকা ওড়াতেই হবে
আনতেই হবে কাক্সিক্ষত জয়।
আর কোন রোদন নয়!
কি আর হয় কান্নাতে?
শহীদ ভাইদের সাথে আমাদের দেখা হয় যেন জান্নাতে।

আটষট্টি হাজার গ্রাম থেকে এখন সমস্বরে উচ্চারিত হোক-
‘ছিঁড়ে যাক পাল ভেঙে যাক হাল আসুক তমসা ঘোর
সপ্ত-সিন্ধু পাড়ি দিয়ে তবু আনতেই হবে নতুন ভোর’।

ভয় কি বন্ধু!-
আমাদের বজ্র-কঠিন শপথের কাছে হার মানবেই
শোষক জালিম,
‘রাব্বানা তাকাব্বাল মিন্না ইন্নাকা আনতাস্ সামিউল আলিম’ ॥

২৭.৫.২০১৬

SHARE

Leave a Reply