সম্পাদকীয়

গাহি সাম্যের গান
মানুষের চেয়ে বড় কিছু নাই, নহে কিছু মহীয়ান
নাই দেশ-কাল পাত্রের, ভেদ-অভেদ, ধর্ম-জাতি
সব দেশে, সব কালে, ঘরে ঘরে তিনি মানুষের জ্ঞাতি
(মানুষ- কাজী নজরুল ইসলাম)

বেঁচে থাকার তাগিদে শ্রমিকরা রক্ত পানি করা হাড়ভাঙা পরিশ্রম করেন। জীবনের সবটুকু উজাড় দিয়ে মালিকপক্ষের ভাগ্য বিনির্মাণে অনবরত নিজেকে সোপর্দ করেন কিন্তু শ্রমিকদের ভাগ্য নির্মাণ নিয়ে কেউ কি ভাবে?
শ্রমিকদের ঘাম শুকানোর আগেই তাদের পাওনা পরিশোধ করার নির্দেশ রয়েছে ইসলামী শরিয়তে। অথচ বেমালুম আমাদের সমাজে শ্রমিকদের ঠকানোর রীতি পরিলক্ষিত। শ্রমিকদের রক্তের দামে মালিকপক্ষ গড়ে তোলে সম্পদের পাহাড় আর শ্রমিকরা আজীবন রয়ে যায় পথের ফকির। শ্রমিকদের নিয়ে আমাদের দেশে অনেক বড় বড় সংগঠন থাকলেও শ্রমিকদের জীবন-মান পরিবর্তনে উল্লেখযোগ্য কোনো উদ্যোগ খুব বেশি চোখে পড়ে না। শুধুমাত্র শ্রমিক দিবসে আগুনঝরা বক্তব্য কিংবা বড় বড় র‌্যালি অথবা সমাবেশ- এই সমস্যা সমাধানের সঠিক কর্মনীতি নয়। বরং প্রয়োজন শ্রমিকদের নিয়ে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়া এবং তা বাস্তবায়নে আরো বেশি আন্তরিক হওয়া।

২.
প্রয়োজন নেই, কবিতার স্নিগ্ধতা-
কবিতা তোমায় দিলাম আজকে ছুটি,
ক্ষুধার রাজ্যে পৃথিবী গদ্যময়:
পূর্ণিমা- চাঁদ যেন ঝলসানো রুটি।
(হে মহাজীবন- সুকান্ত ভট্টাচার্য)

তরুণরা একটি দেশ ও জাতির ভবিষ্যৎ। তরুণদের হাতেই তো আগামীর বাংলাদেশ। কিন্তু সেইসব তরুণের চোখে মুখে আজ হতাশার প্রতিচ্ছবি। সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ থেকে পাস করেও কর্মজীবনে প্রবেশের ক্ষেত্রে চরমভাবে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে প্রতিটি পদে পদে। একমাত্র কারণ হিসেবে যে বিষয়টি আলোচনায় এসেছে তা হলো কোটাপদ্ধতি। যার ফলে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক মেধাবী দেশের গুরুত্বপূর্ণ কোনো সেক্টরে নিজেদের জায়গা করে নিতে পারছেন না। নিরুপায় হয়ে হতাশায় অনেকেই আত্মহত্যার পথ বেছে নিচ্ছেন। দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা এমন রীতি-পদ্ধতির প্রতি নাখোশ হয়ে সাম্প্রতিককালে আন্দোলনে নামে সর্বস্তরের ছাত্রসমাজ। সারাদেশ উত্তাল হয়ে ওঠে। কোটাপদ্ধতি নিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জাতীয় সংসদে একটি বক্তব্য দিয়েছেন, তবে সেখানে কোটাপদ্ধতির সংস্কারের আবেদনটির যথাযথ কোনো দিকনির্দেশনা দেননি। মেধাবী তরুণদেরকে উপেক্ষা করে একটি দেশ কখনো কাক্সিক্ষত লক্ষ্যপানে পৌঁছতে পারে না। ছাত্রসমাজের যৌক্তিক দাবি মেনে নিয়ে শিগগিরই নতুন প্রজ্ঞাপন প্রত্যাশা সকলের।

৩.
যদি না তোমার অন্তর হয় সাদা
যদি না-ই ভাঙে বদ্ধ দিলের খিল
মিছে অনাহার উপবাস দিনমান
নেই কল্যাণ তাতে মোটে এক তিল।
(কবি গোলাম মোহাম্মদ)

পবিত্র মাহে রমজান আত্মশুদ্ধি ও আত্মগঠনের সুবর্ণ সময়। মাহে রমজানের পবিত্রতা অর্জনই হোক আমাদের একমাত্র লক্ষ্য। মহান আল্লাহ তায়ালা যেন আমাদের মনের দুয়ার থেকে সকল ষড়রিপু দূর করে দিয়ে সাচ্চা দিলের একজন মুমিন হিসেবে কবুল করেন সেই প্রত্যাশা।

SHARE

Leave a Reply