আবদুল হালীম খাঁ-র দুটি কবিতা

জ্বলে উঠতে পারি

আমি এক বেকার যুবক
ফুটপাথে পড়ে আছি
কাঁধে নেমে এসেছে অরণ্য চুল
বুকে বইছে কালবৈশাখী ঝড়
বাহুতে জেগেছে ভাঙার সাধ
মুষ্টিতে ভীষণ ক্রোধের বুলেট
শিরায় শিরায় টগবগ করছে তপ্ত খুন
বুকের ভেতরে উসখুস করছে বারুদ
সাবধান
এখন আমার সঙ্গে কেউ আড়ি দেবে না
জ্বলে উঠতে পারি।

কতকাল যাবৎ আমি বাড়িঘর হারা
জমিজিরাত হারা নাগরিক অধিকার হারা
খাদ্য বস্ত্র নেই চোখে নেই ঘুম
এখন আমি ব্যাঘ্রের মতো ক্ষুধার্ত
সাবধান
এখন আমার সঙ্গে কেউ আড়ি দেবে না
জ্বলে উঠতে পারি।

কতকাল যাবৎ আমি সমাজে উপেক্ষিত ঘৃণিত
কতকাল যাবৎ আমি লাঞ্ছিত বঞ্চিত
কতকাল যাবৎ আমি দলিত মথিত
কতকাল যাবৎ আমি পতিত ভাসমান
সাবধান
আমার সঙ্গে কেউ আড়ি দেবে না
জ্বলে উঠতে পারি।

কতকাল যাবৎ আমার স্বপ্ন সৌধ শত্রুর দখলে
কতকাল যাবৎ আমার সাধের গোলাপ হচ্ছে দলিত
কতকাল যাবৎ আমার মাঠের ফসল লুটেরা খাচ্ছে লুটে
আজ আমি রাজপথে এসে দাঁড়িয়েছি
একটা মিছিলের অপেক্ষায়
সাবধান
এখন আমার সঙ্গে কেউ আড়ি দেবে না
জ্বলে উঠতে পারি।

এদ্দিন আমি কাউকে ছুঁইনি ধরিনি
এদ্দিন আমি কাউকে কিছুই বলিনি
এখন খুলতে চাচ্ছি মুখ
এদ্দিন এই হাত ভাঙেনি কিছুই
এখন কিছু ভাঙতে চাচ্ছে এই হাত
সাবধান
এখন আমার সঙ্গে কেউ আড়ি দেবে না
জ্বলে উঠতে পারি।

এমন অন্ধকার

এমন কালো অন্ধকার
কখনো দেখিনি আর।
অন্ধকার নেমেছে গ্রাম গঞ্জ শহরে
ঘরে ঘরে
মাঠ ঘাট হাট বাজার অফিস আদালতে
পথে পথে।
অন্ধকার খাবলে খাচ্ছে বাজারের পাট ধান চাল
চা চিনি চামড়া ময়দা আটা ডাল
পেঁয়াজ রসুন আদা লাউ শিম বেল
নুন মরিচ বেগুন আলু পটোল তেল
সাবান টুথপেস্ট ব্রাশ ব্রেড বিস্কুট গুড়
কেক চানাচুর
বই কাগজপত্র ঔষধ সার
এমন অন্ধকার দেখিনি কভু আর।
অন্ধকারে বাইরে, যায় না যাওয়া
খাওয়া যায় না একটু মুক্ত হাওয়া
সদা মনে ভয় আর ভয়
কখন কি যে হয়।
কখন কার ঠ্যাঙে লাগে গুলি
কখন কার উড়ে যায় মাথার খুলি
বাইরে হায়েনাদের লাফালাফি আর চিৎকার
আমার বাবা দাদা দেখেনি এমন অন্ধকার।
অন্ধকার খাচ্ছে মেধা মানস মন
নদ নদী খাল বিল বন উপবন
কলকারখানা শিক্ষা শিল্প সাহিত্য সংস্কৃতি
ধর্ম কর্ম গণতন্ত্র ব্যবসা বাণিজ্য রাজনীতি
সভা সমিতি মিছিল সংসদ ক্লাব বাস ট্রাক ট্রেন
নেমপ্লেট মনোগ্রাম অলিগলি ড্রেন
পত্রপত্রিকা টিভি ফুলের খামার
এমন অন্ধকার দেখিনি কভু আর।
অন্ধকার গিলে ফেলছে নারীর ইজ্জত
জনতার মতামত
ইতিহাস ঐতিহ্য সীমার খুঁটি
বিদ্যুৎ গ্যাস পানি মানচিত্র হালুয়া রুটি
খনিজ বনজ জলজ ভালোবাসা
স্বপ্ন সাধ ইচ্ছে আশা
শিল্পীর রঙ তুলি
মুখে বুলি
এতোটুকু মান
জীবনের গান
হাল গরু থালা গ্লাস বদনা বাটি
ঘরদোর দোকানপাট ভিটে মাটি
পাতের লবণ ভাত
মায়ের আদরের হাত
আকাশ ছোঁয়া বিশ্বাসের মিনার
এমন ভীষণ অন্ধকার দেখিনি কভু আর।

SHARE

Leave a Reply