বন্ধুর পথে অবিরাম ছুটে চলা -পরিকল্পনাবিদ মো: সিরাজুল ইসলাম

আমাদের পরিচয় এখন আর শুধু একেকজন ব্যক্তির মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই।
এখন সবাই মিলেই আমরা-এক দেহ, এক প্রাণ।
তাইতো কখনও কাঁদি, কখনও হাসি, কখনওবা চুপ থেকে
পরক্ষণেই চিৎকার করে উঠি-
সব মিলিয়েই আমাদের ছুটে চলা।

আমাদের মঞ্জিল সবগুলো সিঁড়ি বেয়ে চলার জন্য।
এ আন্দোলন আমাদের রক্তকে শিহরিত করে,
একই সাথে এতে সঞ্চারণ করে চলে শীতলতা।
তাই আমরা একেবারে উষ্ণও হই না, আবার বরফের মতো ঠান্ডা হওয়াটাও
আমাদের হয়ে ওঠে না।

আমাদের জিহাদ তাই শুধুমাত্র যুদ্ধ বা দাওয়াতের মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়,
আমরা জিহাদের ময়দানে ঝাঁপিয়ে পড়েছি-
জিহাদ ফি সাবিলিল্লাহর সবগুলো হক আদায় করার প্রয়াসে।
মহান প্রভুর, আরশের মহান মালিকের ভালোবাসায় আবদ্ধ হতে
অকৃত্রিম প্রচেষ্টা আমাদেরকে তাড়িত করে।

আমরা সিরাতুল মুস্তাকিমের পথের পথিক হওয়ার জন্য
প্রতিনিয়ত সূরা ফাতিহার ষষ্ঠ আয়াত উচ্চারণ করে থাকি।
কুরআনের প্রতিটি নির্দেশনার মধ্যেই খুঁজে পাই সে সিরাাত
রাসূলের (সা) প্রতিটি কাজের মাঝে খুঁজে পাই
সেই সিরাতের সহজ সাবলীল ব্যাখ্যা।

আমাদের জীবনের মানে আমরা খুঁজে নিয়েছি- দ্বীন বিজয়ের মধ্যে।
যে দীন বিজয়ী হলে-
মানুষের সব দুঃখ, কষ্ট, গ্লানি, ভেদাভেদ, সব, সব দূর হয়ে যাবে।
মানুষ পেয়ে যাবে শান্তিময় একটি সমাজ
আর হেরার রশ্মির স্নিগ্ধ শীতলতা…!

অপার শান্তির সেই সমাজের জন্য আজ আমি তাই ঘুরে ফিরি।
সন্ধান করি-সেসব পথিকের,
যারা আমার মতই আজ শান্তির জন্য হন্যে হয়ে ঘুরে বেড়ায়।
যারা রাস্তার পাশে কনকনে শীতের মধ্যে কাঁপতে থাকা ছোট্ট শিশুটির মুখে
অনাবিল হাসির জন্য সমাধান খুঁজে ফেরে।

যারা মানুষের সমাজটাকে সমাজ হিসাবেই দেখতে চায়।
যারা এ সুন্দর বসুন্ধরাকে সুন্দরতম করে সাজাতে চায়।
যারা আশরাফুল মাখলুকাতের পরিচয়কে নিজের ও নিজেদের জন্য
সত্যে পরিণত করতে চায়।
আমি আজ তাদেরই সন্ধান করি।

ডেকে ফিরি, ডেকে ফিরতে চাই-
এসো মিলিত হই সেই মোহনায়, যেখানে মিলিত হয়েছে সুন্দরতম ইচ্ছেডানাগুলো।
আমরা মিলিত হয়ে এক রাস্তায় হাঁটি।
একই লক্ষ্য পানে ছুটে চলি।
ছুটে চলি খেলাফতের মহান দায়িত্ব পালনের প্রচেষ্টায়।

মহান প্রভুর অপার কৃপা পেলে আমরা নিশ্চয়ই-
নিশ্চয়ই আমরা সফলতার দিকে এগিয়ে যাব
এগিয়ে আমরা যাবই।
সিরাতুল মুস্তাকিমের পথ ধরে আমরা পৌঁছে যাব
অদূর সে মঞ্জিলে মকসুদের দিকে।

সে স্বপ্ন বাস্তবায়নের পথে
কষ্ট কিছুটা থাকে, থাকবেই, যুগে যুগে ছিল।
বেলাল, খাব্বাব, সুমাইয়া, ইয়াসির, আমীরে হামজার পথ ধরে
যুগে যুগে বহুজন সে পথে চলে গিয়ে
সে কথার সাক্ষ্য বহন করে চলেছেন, চলছেন।

সদ্য সময়ের কিছু পথিককে স্মৃতিতে আনতে চাইলেই
আমরা পেয়ে যাই-
পেয়ে যাই আমাদের আবদুল মালেক, সাব্বির, সালাহউদ্দিন, আসলাম,
নোমানী, মুজাহিদ, শিপন, হাফেজ রমজান আলী আর-
আর এমদাদ, জুবায়েরসহ শত শত সাহাব উদ্দিনকে।

ওরা আমাদেরকে পথচলার সহজ উদাহরণ সৃষ্টি করে
দেখিয়ে গেছেন কেমন করে এবং কিভাবে
শত বাধা অতিক্রম করে নিজের প্রচেষ্টাকে চালিয়ে যেতে হয়,
কিভাবে সকল বাধা ডিঙিয়েই
আরশের মালিকের কাছে বিনয়ের সাথে সাক্ষ্য হয়ে দাঁড়াতে হয়।

আজ এ পথিকদের উদাহরণ সামনে আসলে কোন কষ্টের চিন্তাই
আমাদেরকে আর বাধা দিতে পারে না।
আমরা চলতে থাকি অবিরাম, অবিচল, দুর্দম
আর দুর্দান্ত গতিতে।
থামতে আমরা ভুলেই গেছি।

আরশের মালিকের কাছে আজ তাই চেয়ে নিতে চাই-
হে আমাদের মালিক তুমি সাহায্য কর।
সাহায্য করো আমাকে, আমার ভাইকে, আমার নেতাকে, আমাদেরকে…
তুমি কবুল কর আমাদের চেষ্টা, দাও ধৈর্য এবং বিজয়।
শত ত্রুটি থাকলেও ক্ষমা করে দিয়ে তোমার পথের পথিকদেরকে তুমিই চালিয়ে নাও।

তুমি আমাদের হৃদয়ে প্রশান্তি ঢেলে দাও।
সহজ সুন্দর হেরার পথ আমাদেরকে দেখিয়ে নিয়ে চলো।
তোমার রহমতের ভান্ডার থেকে আমাদের জন্য
অবারিত রহমত পাঠাও…
আর আমাদের কবুল করে সত্যের সাক্ষী বানাও।

SHARE

Leave a Reply